Class 9 Model Activity Task History [ Part 7 October 2021 ]

3918
Class 9 Model Activity Task History 2021
সরকারি সুবিধা,সরকারি প্রকল্প, শিক্ষামূলক পোস্ট,সমস্ত ধরনের অফার,ইনকাম সম্পর্কিত পোস্ট (Online Shikkha Site টেলিগ্রাম চ্যানেলে যুক্ত হন )Click Here

Class 9 Model Activity Task History [ Part 7 October 2021 ] মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক Class 9 ইতিহাস উত্তর 2021 | Model Activity Task Class 9 History Part 7 Part 6 Part 5 Part 4 |

তোমরা যারা ক্লাস 9 এ পড়াশুনা করছো , তোমাদের জন্য এই বছর অর্থাৎ অক্টোবর মাসে ইতিহাসের যে নতুন ( ২০২১ সাল ) Model Activity Task দেওয়া হয়েছে। তার সমস্ত উত্তর এখান থেকে দেখে নাও ।

[ 4th Series ] Model Activity Task Class 9 History[ Part 7 October 2021 ]

১ ) সঠিক তথ্য দিয়ে নিচের ছকটি পূরণ করে । 

সন্ধি / চুক্তি সময়কাল    স্বাক্ষরকারী 
ব্রেস্ট  লিটোভস্কের সন্ধি  ১৯১৮ খ্রিস্টাব্দে জার্মানি ও সোভিয়েত রাশিয়া
ভার্সাই সন্ধি১৯১৯ খ্রিস্টাব্দেজার্মানি এবং ইংল্যান্ড – ফ্রান্স – রাশিয়ার মিত্রশক্তি 

২ ) সত্য বা মিথ্যা নির্ণয় করো । 

২.১ ) ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে শেয়ারবাজারে ধস নামার ফলে বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক মহামন্দা দেখা দেয় । 

উঃ – মিথ্যা । 

২.২ ) বেনিটো মুসোলিনি অক্টোবর ১৯১২ খ্রিস্টাব্দে ইতালিতে ক্ষমতা লাভ করে।  

উঃ – সত্য।  

২.৩ ) নতুন অর্থনৈতিক নীতি ( NEP ) ১৯২১ খ্রিস্টাব্দে কাল মার্কস প্রবর্তন করেন।  

উঃ – মিথ্যা । 

২.৪ ) হিটলারের উত্থান এর পশ্চাতে অর্থনৈতিক রাজনৈতিক ও সামাজিক সংকট গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিল । . 

উঃ – সত্য।

৩ ) সাত আটটি বাক্যে উত্তর দাও । 

৩.১ ) প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর বিশ্বের মানচিত্রে কেমন ধরনের পরিবর্তন লক্ষ্য করা গিয়েছিল ? 

উঃ – দীর্ঘ চার বছর ধরে বীভৎস ধ্বংসলীলা চলার পথ অবশেষে প্রথম বিশ্বযুদ্ধের অবসান ঘটে এই যুদ্ধ বিশ্বের মানচিত্রে তথা রাজনৈতিক ক্ষেত্রে এক সুদুরপ্রসারী পরিবর্তনের সূচনা করে এই পরিবর্তন গুলি হল – 

i ) প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর চারটি বৃহৎ সাম্রাজ্য যেমন – রাশিয়া, জার্মানি, তুরস্ক এবং অস্ট্রিয়া, হাঙ্গেরি লোপ  পেয়েছিল । 

ii ) জার্মানির পূর্ব সীমান্তে পোল্যান্ড নামে এক স্বাধীন এবং সার্বভৌম রাষ্ট্র গঠিত হয়েছিল । 

iii ) স্বাধীন পোল্যান্ড রাষ্ট্রকে সমুদ্রের সাথে যুক্ত করতে জার্মানির মধ্য দিয়ে ‘ পোলিশ করিডোর ‘ নির্মাণ করা হয়েছিল ।  

iv ) জার্মানির চেক অধ্যুষিত অঞ্চল নিয়ে চেকোশ্লোভিয়া নামে একটি নতুন রাষ্ট্র গঠিত হয়েছিল । 

v ) প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর ইউরোপে গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রের সংখ্যা ৫ থেকে বৃদ্ধি পেয়ে ১৬ টি হয়েছিল।  

৪ ) ১৫ – ১৬ টি বাক্যে উত্তর দাও । 

প্রশ্ন – ইতালিতে কিভাবে ফ্যাসিবাদী শক্তির উত্থান ঘটেছিল আলোচনা করো । 

উত্তর – নিচের ছবি থেকে উত্তরটি দেখে নাও – 

[ 4th Series ] Model Activity Task Class 9 History[ Part 7 October 2021 ]
Class 9 All Subject Answer 2021 [ October ] Answer Pdf

আরও দেখো ক্লিক করে –

Class 9 Geography October Answer

Class 9 Bengali October Answer

Class 9 Life Science October Answer

Class 9 Physical Science October Answer

4th Series Class 9 History Part 7 | Class 9 History Task Part 7 2021 | Class 9 History October Task Answer |

[ 3rd Series 2021 ]Class 9 Model Activity Task History Part 6 September

১ ) ‘ ক ‘ স্তম্ভের সাথে ‘ খ ‘ স্তম্ভ মেলাও 

উত্তর –

১.১ ) ভার্সাই চুক্তিগ ) ১৯১৯ খ্রি 
১.২ ) মহামন্দাঘ ) ১৯২৯ খ্রি 
১.৩ ) চৌদ্দ দফা শর্ত খ ) ১৯১৮ খ্রি 
১.৪ ) স্পেনের গৃহযুদ্ধক ) ১৯৩৬ খ্রি 

২ ) সত্য বা মিথ্যা নির্ণয় করো । 

২.১ ) রাশিয়ার পার্লামেন্ট ডুমা নামে পরিচিত । 

উঃ –  সত্য । 

২.২ ) ভাইমার প্রজাতন্ত্র জার্মানিতে গড়ে ওঠা একটি অস্থায়ী সরকার যার কার্যকাল ছিল ১৯১৯ – ১৯৩৩ সাল পর্যন্ত । 

উঃ – মিথ্যা । 

২.৩ ) চোদ্দ দফা নীতি ঘোষণা করেন লেনিন । 

উঃ – মিথ্যা । 

২.৪ ) লীগ অফ নেশনস গড়ে ওঠে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের পর । 

উঃ – মিথ্যা । 

৩ ) দুটি বা তিনটি বাক্যে উত্তর দাও । 

৩.১ ) এমস টেলিগ্রাম কি ? 

উঃ – স্পেনের সিংহাসনের উত্তরাধিকারী প্রশ্ন নিয়ে প্রুশিয়ার রাজা প্রথম উইলিয়ামের সাথে ফরাসি রাষ্ট্রদূত কাউন্ট বেনেদিত্তির যে আলাপ-আলোচনা হয়, তা কিছুটা বিকৃত করে বিসমার্ক এক টেলিগ্রাফ মারফত তা প্রচার করে দেন। এই টেলিগ্রাম ইতিহাসে ‘ এমস টেলিগ্রাম ‘ নামে পরিচিত । 

৩.২ ) প্যারি কমিউন গঠনের উদ্দেশ্য কি ছিল ? 

উঃ – প্যারি কমিউন গঠনের উদ্দেশ্য – 

i ) প্যারিস নগরীর বিপ্লবী পৌর প্রশাসন পরিচালনা করা।  

ii ) প্যারিসের গৌরব ও মর্যাদা বৃদ্ধি করা।  

iii ) সমগ্র ফ্রান্সের ওপর প্যারি কমিউন এর প্রাধান্য প্রতিষ্ঠা করা।

৪ ) সাত বা আটটি বাক্যে উত্তর দাও । 

প্রশ্ন – জার্মানির ঐক্য আন্দোলনে বিসমার্কের ভূমিকা উল্লেখ করো । 

উত্তর – বিসমার্ক বুঝেছিলেন একমাত্র প্রাশিয়ার নেতৃত্বেই জার্মানির ঐক্য সম্ভব । সেই কারণেই তিনি ১৮৬২ খ্রিস্টাব্দে প্রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী পদ গ্রহণ করেন । 

রক্ত ও লৌহ নীতি – রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বিসমার্ক জার্মানির ঐক্য সাধনের জন্য রক্ত ও লৌহ নীতি প্রয়োগ করেন । এই নীতির মূল কথা হলো – উদ্দেশ্য সাধনের জন্য প্রয়োজনে বল প্রয়োগ করতে হবে । বিসমার্ক মনে করতেন একমাত্র যুদ্ধের মাধ্যমেই জার্মানির ঐক্য সম্ভব । এই জন্য তিনি অল্প সময়ের মধ্যে প্রাশিয়ার বাহিনীকে ইউরোপের অন্যতম সেরা বাহিনীতে পরিণত করেন । প্রাশিয়ার আইনসভার ঘোষণা করেন গুরুত্বপূর্ণ কাজ বক্তৃতা বা ভোটের দ্বারা হবে না, তা করতে হবে রক্ত ও লৌহ নীতি দিয়ে।  

রক্ত ও লৌহ নীতির প্রয়োগ – বিসমার্ক যুদ্ধের অনুকূল পরিস্থিতি কে কাজে লাগিয়ে ১৮৬৪ থেকে ১৮৭০ এই ছয় বছরের মধ্যে তিনটি যুদ্ধের সাহায্যে জার্মানির ঐক্য সম্পূর্ণ করেন । যথা – 

i ) ডেনমার্কের সঙ্গে যুদ্ধ ( ১৮৬৪ ) জয় । 

ii ) অস্ট্রিয়ার সঙ্গে যুদ্ধ ( ১৮৬৬ ) জয় । 

iii ) ফ্রান্স এর সঙ্গে যুদ্ধ ( ১৮৭০ ) জয় ।  

মূল্যায়ন – এইভাবে বিসমার্কের ইতিবাচক নেতৃত্বে জার্মানির রাষ্ট্রিয় ঐক্য সম্পূর্ণ হয় । এই নবগঠিত জার্মানির রাজা হন প্রথম উইলিয়াম ।

[ September 2021 ] Class 9 History Part 6 Task Answers | 3rd Part Class 9 History 2021 Task Answers |  

Model Activity Task History Class 9 Part 5 ( August )

১ )  ক স্তম্ভের সাথে খ স্তম্ভ মেলাও ( উত্তর  )

 ক স্তম্ভ খ স্তম্ভ
১.১ ) ইয়ং ইতালিখ ) জোসেফ মাৎসিনি
১.২ ) সেফটি ল্যাম্প ঘ ) হামফ্রি ডেভি 
১.৩ ) ইউটোপীয় সমাজতন্ত্রক ) সাঁ সিমো 
১.৪ ) রক্ত ও লৌহ নীতিগ ) বিসমার্ক

২ ) সত্য-মিথ্যা নির্ণয় করো

২.১ ) ফ্রান্সে দ্বিতীয় প্রজাতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয় ১৮৪৮ খ্রিস্টাব্দে

উঃ –  সত্য। 

২.২ ) শিল্প বিপ্লবের সময় ইংল্যান্ড বিশ্বের কারখানা হিসাবে পরিচিত হয়

উঃ – সত্য। 

২.৩ ) হিটলারের ভাষায় ইতালি ছিল – ‘ একটি ভৌগোলিক সংজ্ঞা মাত্র।’

উঃ – মিথ্যা। 

২.৪ ) এড্রিয়ানোপলের সন্ধি স্বাক্ষরিত হয়েছিল রাশিয়া ও তুরস্কের মধ্যে

উঃ – সত্য।

৩ ) দুটি বা তিনটি বাক্যে নিচের প্রশ্নগুলির উত্তর দাও

৩.১ ) রিসর্জিমেন্টো কি ?

উঃ – কার্বোনারী সমিতির হাত ধরে ইতালিতে জাতীয়তাবাদী জাগরণ তথা আন্দোলনের জন্ম হয় যাকে বলা হয় রিসর্জিমেন্টো বা পুনরুত্থান বা নবজাগরণ। এই জাগরণ এর মধ্য দিয়ে ইতালিবাসী তাদের অতীত ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও বীরগাথা সম্পর্কে বিশেষ অবগত হয়। 

৩.২ ) ঘেটো কাকে বলা হত ?

উঃ – ইউরোপের বিভিন্ন শহরের সংখ্যালঘু সম্প্রদায় ( যেমন ইহুদিরা ) তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে শহরের একটি নির্দিষ্ট ঘেরা জায়গায় একসঙ্গে বসবাস করত। এই ঘেরা স্থান বা বসতিগুলিকেই বলা হত ঘেটো।উল্লেখ্য ঘেটো কথাটির উদ্ভব হয় ইতালির ভেনিস শহরকে কেন্দ্র করে। 

৪ )  সাত বা আটটি বাক্যে উত্তর দাও

প্রশ্ন – কাকে মুক্তিদাতা জার বলা হয় এবং কেন ?

উত্তর – রাশিয়ার জার দ্বিতীয় আলেকজান্ডারকে মুক্তিদাতা জার বলা হয়। 

জার দ্বিতীয় আলেকজান্ডার সিংহাসনে আরোহন করে অনুধাবন করলেন যে রাশিয়ার পিছিয়ে পড়ার পিছনে একমাত্র ভূমিদাস প্রথা দায়ী এজন্য তিনি –

i ) ১৮৬১ খ্রিস্টাব্দের ১৯ ফেব্রুয়ারি তিনি এক আদেশ জারি করে রাশিয়াতে যুগ যুগ ধরে চলে আসা ভূমিদাসদের দাসত্ব থেকে মুক্তি দিয়ে তাদের স্বাধীন বলে ঘোষণা করেন।

ii ) ভূমিদাস স্বাধীন ভাবে জীবন যাপন করা ও সম্পত্তির অধিকার লাভ করেছিল।  

তাই ভূমি দাসদের কাছে তিনি মুক্তিদাতা জার নামে পরিচিত ছিলেন

Class 9 Model Activity Task History All Part 2021|Class 9 History | Model Activity Task History Class 9 Part 1- Part 2 Part 4 Part 5 | মডেল আক্টিভিটি টাস্ক Class 9 History Answer 2021 | ক্লাস 9 মডেল আক্টিভিটি টাস্ক ইতিহাস

Class 9 Model Activity Task History 2021 Part 1

ক ) নিচের প্রশ্নগুলির উত্তর দাও ( ৩ – ৪ টি বাক্যে )

১ ) চতুর্দশ লুইয়ের ‘ আমিই রাষ্ট্র ‘ উক্তিটি বুরবোঁ রাজবংশের কোন চরিত্রকে প্রকাশ করে ?

উত্তর – অষ্টাদশ শতকে ফ্রান্সের বুরবোঁ রাজবংশের অধীনে স্বৈরাচারী রাজতন্ত্র বিদ্যমান ছিল।  পুরাতন তন্ত্রের ধারক ও বাহক বুরবোঁ বংশের রাজাদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন চতুর্দশ লুই। তার উক্তি ‘ আমিই রাষ্ট্র ‘ থেকে বোঝা যায় চতুর্দশ লুইয়ের ইচ্ছানুসারে সীমাহীন স্বৈরতন্ত্রের মাধ্যমে দেশ শাসন করতেন। 

২ ) ইউরোপীয় রাষ্ট্রগুলির জোটবদ্ধতা কিভাবে নেপোলিয়নের পতনকে ত্বরান্বিত করেছিল ?

উত্তর – নেপোলিয়নের বিরুদ্ধে ১৮১৩ সালে রাশিয়া, অস্ট্রিয়া, সুইডেন, ইংল্যান্ড ও তুরস্ক চতুর্থ শক্তিজোটে যোগ দিয়েছিল।  নেপোলিয়ন প্রথমে ড্রেসডেনের যুদ্ধে চতুর্থ শক্তি জোটকে পরাজিত করেন। কিন্তু তিনি শীঘ্রই লাইপজিগের যুদ্ধে মিলিত বাহিনীর কাছে পরাজিত হন। 

খ ) ইউরোপে মানচিত্রে নিম্নোক্ত স্থানগুলি চিহ্নিত করো। (  প্যারিস, স্পেন, পর্তুগাল, গ্রেট ব্রিটেন, মস্কো )

উত্তর – তোমরা এটা ইউরোপে মানচিত্রে নিজেরা করে নাও। 

গ ) নিচের শব্দগুলি কোনটি পাশের কোন বক্সের মধ্যে বসবে।  ( একটি শব্দ একাধিক বক্সের মধ্যে বসাতে পারো )

উত্তর –   নিচের ছবি থেকে উত্তরটি দেখে নাও । 

প্রথম সম্প্রদায় – যাজক শ্রেণী ।

দ্বিতীয় সম্প্রদায় – অভিজাত শ্রেণী।

তৃতীয় সম্প্রদায়  – প্রথম ও দ্বিতীয় সম্প্রদায় বাদে সমগ্র ফরাসি জনগণ। 

Class 9 Model Activity Task History 2021 Part 1

ঘ ) উপযুক্ত তথ্য সহযোগে নিচের ছকটি পূরণ করো। 

উত্তর –  রুশো – 

গ্রন্থ / রচনা 

i ) সোশ্যাল কন্ট্রাক্ট। 

ii ) এমিল এবং ধর্ম। 

বক্তব্য 

i ) একমাত্র ন্যায়সঙ্গত শাসক হলো তারা যাদের জনগণ স্বাধীনভাবে পছন্দ করে নেবে। 

ii ) যাজকদের সমালোচনা করে লেখা। 

মন্তেস্কু – 

গ্রন্থ / রচনা 

i ) The Spirit Of Law .

ii ) The Sersian Letters.

বক্তব্য 

i ) এই গ্রন্থে তিনি স্বাধীনতা বিষয়ক বক্তব্য করেছেন। 

ii ) এই বইটিতে সমকালীন ফরাসি রাজনৈতিক, ধর্মীয় ও সামাজিক প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে তীব্র শ্লেষ ও বিদ্রুপ করেছেন।  

ভলতেয়ার –

গ্রন্থ / রচনা 

i ) Treatiseon 

ii ) ফিলোসফিক্যাল লেটার্স অন ইংলিশ। 

বক্তব্য 

i ) এই গ্রন্থের মূল বক্তব্য হলো সব মানুষের ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার আছে। তার মতে সব মানুষেরই মালিক একজন।  তাই ধর্মকে কেন্দ্র করে দ্বন্দ্ব সৃষ্টি করা উচিত নয়। 

ii ) এই গ্রন্থে তিনি ব্রিটিশ সমাজ ব্যবস্থার পক্ষে কথা বলেছেন। 

Class 9 Model Activity Task History 2021 Part 2

নিজের প্রশ্নগুলির উত্তর লেখো :

১ ) ফরাসি বিপ্লব কিভাবে সামন্ততন্ত্রের বিলোপ ঘটিয়েছিল ?

উত্তর – ফরাসি সম্রাট ষোড়শ লুই ১৭৮৯ সালে জেনারেল অধিবেশন আহ্বান করেন।  এই অধিবেশনের সম্রাট তৃতীয় শ্রেণীর প্রতিনিধিদের মাথাপিছু ভোটদানে দাবি না মানলে তারা নিজেদের সভাকে জাতীয় সভা বলে ঘোষণা করে এবং টেনিস কোর্টের শপথ নিয়ে নতুন সংবিধান রচনার অঙ্গীকার করে।  এইভাবে জাতীয় সভা সংবিধান সভায় রূপান্তরিত হয়। 

 সামন্ততন্ত্রের বিলোপ  – 

বিপ্লবের যুগে ফরাসি সংবিধান সভা দুই বছরের চেষ্টায় একটি সংবিধান রচনা করে। ১৭৮৯ সালে ৪ ই আগস্ট জাতীয় সভার অধিবেশনে ফ্রান্সে সামন্তপ্রথার বিলোপ করা হয়েছিল।  প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সামন্ত প্রথার অবলুপ্তির ফলে ফ্রান্সে ভূমিদাস প্রথা, করভি প্রথা, সামন্তকর,  বিশেষ অধিকার সভা যথা সরকারি চাকুরিতে অগ্রাধিকার অন্ত শুল্ক প্রথা লোপ পায়। ৪ ঠা আগস্টের ঘটনা কার্যত ফ্রান্সে সামন্তপ্রথার মৃত্যু ঘন্টা বাজায়। ফলে অভিজাতদের সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করা হয় এবং কৃষকদের হাতে হাতে তুলে দেওয়া হয়। 

২ ) ‘ সন্ত্রাসের রাজত্ব ‘ নামকরণ কতটা যুক্তিযুক্ত। 

উত্তর – ফ্রান্সে রোবসপিয়ার এর নেতৃত্বে জকোবিন দল  ১৭৯৩ – ৯৪ সালে যে শাসন ব্যবস্থা কায়েম করেছিল তা ইতিহাসে রাজত্ব বা সন্ত্রাসের শাসন নামে পরিচিত। 

নীতিগ্রহন – জেকোবিন দল বৈদেশিক ও অভ্যন্তরীণ সমস্যার সমাধানের জন্য কঠোর দমননীতি অনুসরণ করে ফ্রান্সে সন্ত্রাসের শাসন নীতি গ্রহণ করেছিল। 

স্থায়ীত্ব – সন্ত্রাসের শাসন চলেছিল ১৩ মাস ( ১৭৯৩ সালের জুন থেকে ১৭৯৪ সালের জুলাই পর্যন্ত ) এই সময় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার মানুষকে গিলোটিনে বা অন্যভাবে হত্যা করেছিল। 

নেতা – সন্ত্রাসের শাসনের প্রধান পরিচালক ছিলেন জেকোবিন দলের নেতা রোবসপীয়র। 

উদ্দেশ্য – সন্ত্রাসের শাসনের প্রধান উদ্দেশ্য ছিল  – ভীতি প্রদর্শন করে ফ্রান্সের জাতীয় ঐক্য ও সংহতি রক্ষা করা আর ফ্রান্সের অভ্যন্তরে কালোবাজারির বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করা। 

সন্ত্রাসের ভয়াবহতা – সন্ত্রাসের রাজত্বকালে প্রায় ৩০ থেকে ৩৫ হাজার নরনারীকে গিলোটিন যন্ত্রে হত্যা করা হয়।  সন্দেহের আইনে প্রায় ৩ লক্ষ মানুষকে গ্রেফতার করা হয়, আরোও অনেক মানুষ নিখোঁজ হয়ে যায়।  যাদের অনেককে জলে ডুবিয়ে বা অন্যভাবে হত্যা করা হয়। 

উপরের আলোচনা থেকে আমরা বুঝতে পারি যে সন্ত্রাসের রাজত্ব কতটা যুক্তিযুক্ত। 

৩ ) নিচের প্রতিটি বিষয় / ব্যক্তি সম্পর্কে একটি করে বাক্য লেখ –

ক ) অসিয়া রেজিম – অসিয়া রেজিম কথার অর্থ হল প্রাচীন আমল। ১৭৮৯ সালে ফরাসি বিপ্লবের পূর্বে ফ্রান্সে বুরবোঁ রাজাদের আমলকে অসিয়া রেজিম বলা হয়। 

খ ) লেতর দ ক্যাশে –  লেতর দ ক্যাশে হলো ফ্রান্সে প্রচলিত এক ধরনের গ্রেপ্তারি পরোয়ানা। এর মাধ্যমে যে কোন ব্যক্তিকে বিনাবিচারে গ্রেফতার করা হয়। 

গ ) সাঁকুলোৎ – প্রাক – বিপ্লব ফ্রান্সের সমাজে সুবিধাহীন তৃতীয় সম্প্রদায়ের অন্তর্গত ছিল সাঁকুলোৎ। 

ঘ ) রোবসপীয়র – রোবসপীয়র ছিলেন ফরাসি বিপ্লবের অংশগ্রহণকারী উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিদের মধ্যে একজন। ফরাসি বিপ্লবের সূচনা কাল থেকে ফরাসি বিপ্লবের সংকট পর্ব পর্যন্ত ধারাবাহিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন রোবসপীয়র ও তার সঙ্গীরা। 

৪ )  উপযুক্ত তথ্য সহযোগে নিচের ছকটি পুরন করো ।

উত্তর – ট্রাফালপারের যুদ্ধ –

বিবাদমান পক্ষ – ইংল্যান্ড ও ফ্রান্স ।

সময়কাল – ১৮০৫ ।

ফলাফল – ফ্রান্সের শোচনীয় পরাজয় ঘটে । নেপোলিয়নের ইংল্যান্ড জয়ের স্বপ্ন চিরতরে শেষ হয়ে যায় ।

লিপজিগের যুদ্ধ –

বিবাদমান পক্ষ –  ফ্রান্স ও মিত্রশক্তি ( প্রাসিয়া, রাশিয়া, সুইডেন, অস্ট্রিয়া ) 

সময়কাল – ১৮১৩ ।

ফলাফল – এই যুদ্ধে নেপোলিয়ন মিত্র শক্তির কাছে পরাজিত হয় । এই যুদ্ধে পরাজয়ের পর নেপোলিয়নের সাম্রাজ্যের ভাঙ্গন শুরু হয়। অস্ট্রিয়া তার হারানো রাজ্য পুনরায় ফিরে পায় । 

ওয়াটারলুর যুদ্ধ – 

বিবাদমান পক্ষ – ফ্রান্স ও ব্রিটিশ বাহিনী আর রুশ বাহিনী ।

সময়কাল – ১৮১৫ ।

ফলাফল –  এই যুদ্ধে নেপোলিয়ন চূড়ান্তভাবে পরাজিত হয় । এই যুদ্ধের ফলে প্যারিসের প্রথম ও দ্বিতীয় সন্ধি ও ভিয়েনা চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় । এই যুদ্ধে নেপোলিয়ন ব্রিটিশ নৌশক্তির কাছে আত্মসমর্পণ করে । 


তোমরা সকলে বাড়িতে মন দিয়ে পড়াশুনা করো।  আর রাজ্য সরকারের নিয়মকানুন মেনে চলো।  

Class 9 Model Activity Task History [ Part 7 October 2021 ] মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্ক Class 9 ইতিহাস উত্তর 2021 | Model Activity Task Class 9 History Part 7 Part 6 Part 5 Part 4 |

আশা করি এই পোস্টটি তোমার অনেক উপকারে এসেছে। 

এই পোস্টটি তোমার উপকারে আসলে বন্ধুবান্ধবের সাথে শেয়ার করার অনুরোধ রইল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here